বন্দরে ধারালো ব্লেড দিয়ে পুচিয়েপ্রতিবেশীকে হত্যার চেষ্টা

0
নারায়ণগঞ্জের বন্দরে তুচ্ছ ঘটনার জেরে সামসুর নাহার (৩০) নামে এক গৃহবধূকে মাছ কাটার বটি ও ধারালো ব্লেড দিয়ে নৃশংসভাবে পুচিয়ে হত্যার ব্যার্থ চেষ্টা চালিয়েছে প্রতিবেশী মোর্শেদা ও তার পরিবারের সদস্যরা। এতে গৃহবধূর মুখে ও গলায় মারাত্মক জখম হয়। রোববার সন্ধ্যায় কলাগাছিয়া ইউনিয়য়েনর শুভকরদী গ্রামে এ ঘটনাটি ঘটে। গৃহবধূকে গুরুতর অবস্থায় প্রথমে বন্দর উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে,পরে নারায়ণগঞ্জ জেনারেল (ভিক্টোরিয়া) হাসপাতালে নিয়ে গেলে সেখানকার কর্তব্যরত ডাক্তার তাকে ঢাকা মেডিক্যাল কলেজ হাসপাতালে রেফার্ড করেন। এব্যাপারে আহতের ভাসুর মনির হোসেন  ঐদিন রাতেই বন্দর থানায় ৬জনকে আসামি করে লিখিত একটি অভিযোগ দায়ের করেন।
অভিযুক্তরা হলেন, কলাগাছিয়ার শুভকরদী গ্রামের মৃত রুহুল আমিন মিয়ার ছেলে গিয়াস উদ্দিন,তার  স্ত্রী মোর্শেদা,তার মেয়ে শাহিদা , জামাতা রবিন, ছেলে জসিম ও রিয়াদ।
আহতের পারিবারিক সূত্র জানায়,রোববার সকালে গৃহবধূ সামছুন্নাহারের সাথে প্রতিবেশী মোর্শেদার সাথে তুচ্ছ ঘটনা নিয়ে বাকবিতন্ডা হয়। এর জের ধরে, সামছুন্নাহার তার পার্শ্ববর্তী মরিয়মদের বাড়িতে রান্নার উদ্দেশ্যে যাওয়া পথে উল্লেখিত আসামীরা পরিকল্পিতভাবে তার উপর হামলা চালায়। হামলাকারীরা তাদের হাতে থাকা ধারালো ছুরি, মাছ কাটার বটি ও ধারালো ব্লেড দিয়ে এলোপাতাড়ি আঘাত করে। এসময় তার ডাক-চিৎকারে এলাকাবাসী এগিয়ে হামলাকারীরা সটকে পড়ে। পরে আশ পাশের লোকজন জড়ো হয়ে গৃহবধূকে গুরুতর অবস্থায় উদ্ধার করে প্রথমে বন্দর উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে,পরে নারায়ণগঞ্জ জেনারেল (ভিক্টোরিয়া) হাসপাতালে নিয়ে গেলে সেখানকার কর্তব্যরত ডাক্তার তাকে ঢাকা মেডিক্যাল কলেজ হাসপাতালে রেফার্ড করেন।
এদিকে অভিযোগ দায়ের পরপরই পুলিশ ঘটনাস্থলে পৌছে অভিযুক্ত ২জনপর্যন্ত আহতের আশংকা কাটেনি।